গোদাগাড়ী-তানোর ইউপির প্রার্থী তালিকা নিয়ে তৃণমূলে ক্ষোভ

শনিবার, ০৯ অক্টোবর ২০২১ | ৬:০৩ অপরাহ্ণ

গোদাগাড়ী-তানোর ইউপির প্রার্থী তালিকা নিয়ে তৃণমূলে ক্ষোভ
apps

আসন্ন ইউপি নির্বাচনে রাজশাহীর গোদাগাড়ী ও তানোরের আওয়ামী লীগের মনোনীতদের তালিকা প্রকাশের পর তৃণমূলে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। দলীয় নেতাকর্মীদের অভিযোগ, গোদাগাড়ী ও তানোরে চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়নে পক্ষপাতিত্বের পাশাপাশি অর্থবাণিজ্য হয়েছে।

গোদাগাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ তুলেছেন বিক্ষুব্ধরা। আগামী ১১ নভেম্বর গোদাগাড়ী ও তানোরের মোট ১৬ ইউনিয়নে ভোট হবে।

এদিকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মনোনয়ন বঞ্চিতরা রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী-তানোর) আসনের সংসদ-সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরীর বাড়িতে ভিড় করেন। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে পক্ষপাতিত্ব ও মনোনয়ন বাণিজ্যের অভিযোগ করেন।

গোদাগাড়ীর মনোনয়ন বঞ্চিতরা বলেন, চর আষাড়িয়াদহ ইউনিয়নে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে পক্ষাঘাতগ্রাস্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মো. শহীদুল্লাহকে। শহীদুল্লাহ গত ৩০ সেপ্টেম্বর পক্ষাঘাতে আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তিনি দলের মনোনয়ন চেয়ে ফরম উত্তোলন করেননি। এরপরও কিভাবে দলীয় মনোনয়ন পেলেন-এমন প্রশ্ন তোলেন চর আষাড়িয়াদহ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ আলী চাঁন্দ। শহীদুল্লাহর ছেলে মো. নাহিদ বলেন, বাবা এখন কথা বলতে পারছেন না। অসুস্থতার কারণে তিনি মনোনয়ন চাননি। যেহেতু দল মনোনয়ন দিয়েছে তাই তার শারীরিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ২০১৬ সালের নির্বাচনে তিনি চতুর্থ হয়েছিলেন।

গোদাগাড়ীর রিশিকুল ইউপির চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম টুলুকে আবারও মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। তবে তিনিও গত এক বছর পক্ষাঘাতে শয্যাশায়ী। কথা বলতে ও স্বাক্ষর করতে পারেন না। চাল চুরির অভিযোগে তার বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। নারী কেলেংকারিতে জড়িয়ে পড়ার মতো গুরুতর ঘটনার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। রিশিকুল ইউপি আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোখলেসুর রহমান মুকুল মনোনয়ন না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এদিকে দেওপাড়া ইউনিয়নে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে বেলাল উদ্দিন সোহেল ওরফে হুন্ডি সোহেলকে। তিনি সোনামসজিদ স্থলবন্দরের মাধ্যমে অবৈধভাবে বিভিন্ন পণ্য এনে বিপুল অর্থবিত্তের মালিক হয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। গত বছর রাজশাহী উপশহরের একটি বাড়িতে এক কাস্টমস কর্মকর্তাকে ঘুসের কোটি টাকা দিতে গিয়ে গোয়েন্দা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছিলেন সোহেলের ভাই জুয়েল।

এ ইউপিতে মনোনয়ন বঞ্চিত জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক আকতারুজ্জামান বলেন, আমি তিনবারের চেয়ারম্যান। একাধিকবার জেলার শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান হয়েছি। তৃণমূলের সব সংগঠন আমাকে সুপারিশ করেছিল। দল আমাকে বাদ দিয়ে একজন কালো টাকার মালিককে মনোনয়ন দেওয়ায় তৃণমূলে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।

অন্যদিকে বাসুদেবপুরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলামকে তৃণমূল সুপারিশ করলেও মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে শফিকুল ইসলামকে। গোদাগাড়ী সদর ইউপিতে তোফাজ্জল হোসেন সেন্টু মাস্টারকে তৃণমূল সুপারিশ করলেও দেওয়া হয়েছে মাসুদুল গণিকে। মোহনপুরে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জয়নাল আবেদিন জনিকে বাদ দিয়ে জামায়াত থেকে আসা খাইরুল ইসলামকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। পাকড়ি ইউপিতে মাসুদকে তৃণমূল সুপারিশ দিয়েছিল। তবে মনোনয়ন পেয়েছেন জালাল উদ্দিন। মাটিকাটা ইউপিতে বিএনপি থেকে আসা শহিদুল করিম শিবলী মনোনয়ন পেয়েছেন।

এদিকে তানোরের কামারগাঁও ইউপিতে বর্তমান চেয়ারম্যান মোসলেম উদ্দিনকে বাদ দিয়ে ফজলে রাব্বি মির্জাকে মনোনয়ন দেওয়ায় তৃণমূলের নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ বলে জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন। তালোন্দ ইউপিতে মনোনয়ন পাওয়া বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কাশেমের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে। এলাকাবাসী নিশ্চিত করেছেন, নৃশংস হলি আর্টিজান ঘটনার মাস্টারমাইন্ড র‌্যাবের অভিযানে নিহত শীর্ষ জঙ্গি আবুল বাশার চকলেট আবুল কাশেমের আপন ভাগ্নে।

রাজশাহীর ১৬ ইউপির মনোনয়ন নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বলেন, মনোনয়ন না চেয়েই অনেকেই মনোনয়ন পেয়েছেন। অনেক বিতর্কিত ও কালো টাকার মালিক মনোনয়ন পেয়েছেন। ত্যাগীরা বঞ্চিত হয়েছেন। তিনবারের জনপ্রিয় ও শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যানও বাদ পড়েছেন।

বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসব নজিরবিহীন অনিয়মের দায় এড়াতে পারেন না। তিনি প্রশ্ন তোলেন, তৃণমূলের এত হতাশা নিয়ে দল চলবে কীভাবে?

এ বিষয়ে গোদাগাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ বলেন, দলের মনোনয়ন না চেয়েও কেউ পেয়েছেন কিনা জানা নেই। আমরা তৃণমূলের সব সুপারিশ কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ডে পাঠিয়েছি। যা কিছু কেন্দ্র থেকেই হয়েছে। আমরা এর বেশি কিছুই জানি না। এ দায় আমাদের নয়।

Development by: webnewsdesign.com