শ্রীমঙ্গলে প্রবাসীর বাড়ির গেট ভেঙ্গে পুকুরে নিক্ষেপ 

শনিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২২ | ৭:৩০ অপরাহ্ণ

শ্রীমঙ্গলে প্রবাসীর বাড়ির গেট ভেঙ্গে পুকুরে নিক্ষেপ 
apps
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে এক প্রবাসীর বাড়ির গেট ভেঙ্গে পুকুরে নিক্ষেপ করার অভিযোগ উঠেছে প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে। শুক্রবার সকালে উপজেলার ভূনবীর ইউনিয়নের পশ্চিম লইয়ারকুল গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় শনিবার (৫ ফেব্রুয়ারি) প্রবাসী আব্দুর রহিম বাদী হয়ে একই গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস (৫৫), মোস্তাফিজুর রহমান দরছ (৪৫), বিলাল মিয়া (৩৬), দুলাল মিয়া (৪২), জয়ফুল বেগম (৪৫), রাশেদা বেগম (৩৫) এবং শিবলী আক্তার (২৩) কে অভিযুক্ত করে শ্রীমঙ্গল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
প্রবাসী আব্দুর রহিম অভিযোগ করে বলেন, প্রবাসে থেকে কষ্টার্জিত অর্থে একটি বাসা ক্রয় করে ৩৫ বছর যাবত বসবাস করে আসছি। সে সময় স্থানীয়রা বাসার ভেতর দিয়ে অস্থায়ী ভাবে চলাচল করতো। আমরা মানবিক কারণে বাড়ির রাস্তা দিয়ে চলাচলে সুযোগ দিতাম। সম্প্রতি আমি কুয়েত থেকে দেশে আসার পর বাড়িতে একটি হাঁসের খামার করি। হাঁসের খামার এবং বাড়ির নিরাপত্তার স্বার্থে বাড়ির প্রবেশ মুখে একটি স্টিলের গেট নির্মাণ করি।
গেট নির্মাণ করার পর থেকে গ্রামের কতিপয় প্রভাবশালী বিভিন্ন ভাবে আমাকে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। গত শুক্রবার সকাল ১০ টার দিকে আব্দুল কুদ্দুস ও তার লোকজন দা, রড, লাঠি নিয়ে বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ির গেট ভেঙ্গে ফেলে। পরে গেটটি পাশের একটি পুকুরে ফেলে দেয় বলে তিনি জানান।
গ্রামের বাসিন্দা সোহাগ (৪২) ও মোখলেছুর রহমান (৬২) বলেন, প্রবাসী আব্দুর রহিমের নিজ বাড়িতে গেট নির্মাণকে কেন্দ্র করে আব্দুল কুদ্দুস আপত্তি করে।
 এনিয়ে আমরা গ্রামের লোকজন ও চেয়ারম্যানকে নিয়ে বৈঠকে বসে বিষয়টি সমাধান করার উদ্যোগ নিয়েছিলাম। কিন্তু আব্দুল কুদ্দুস ও তার লোকজন হামলা চালিয়ে গেটটি ভেঙ্গে পুকুরে ফেলে দেয়। স্থানীয় ইউপি সদস্য নিয়াজ ইকবাল মাসুদ ও পার্শ্ববর্তি ইউপি সদস্য মোহাম্মদ আলী শনিবার ঘটনাস্থলে গিয়ে জানান, বিষয়টি স্থানীয়ভাবে সমাধানে উদ্যোগ নিলে আব্দুল কুদ্দুস পক্ষ এতে রাজী হননি।  যোগাযোগ করা হলে আব্দুল কুদ্দুস গেট ভেঙ্গে ফেলার কথা স্বীকার করে বলেন, ‘অসুস্থ থাকায় আমাকে মেডিকেলে নিতে গাড়ি বাড়িতে নেয়ার জন্য গেটটি ভেঙ্গে ফেলা হয়’।
এবিষয়ে শ্রীমঙ্গল থানার এএসআই জামাল মিয়া জানান, অভিযোগ পেয়ে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। স্থানীয়দের সাথে কথা বলে ও সিসি ফুটেজ দেখে প্রাথমিক ভাবে অভিযোগের সত্যতা পাই। তদন্ত করে পরবর্তি আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

Development by: webnewsdesign.com