পুলিশ সদস্যের আত্মহত্যা

মঙ্গলবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৫:১৫ অপরাহ্ণ

পুলিশ সদস্যের আত্মহত্যা
apps

রাজধানীর মিরপুরে আবদুল কুদ্দুস (৩১) নামের এক পুলিশ সদস্যকে আত্মহত্যায় প্ররোচণার দেওয়ার অভিযোগে স্ত্রী ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) ইলিয়াস মিয়ার আদালতে মামলাটি দায়ের করেন নিহতের মা সৈয়দা হেলেনা খাতুন।এদিন বাদির জবানবন্দি গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কে অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন আদালত।

 

 

 

অভিযুক্ত আসামিরা হলেন- আবদুল কুদ্দুসের স্ত্রী সৈয়দা হাবিবুন্নাহার ওরফে নাহিন এবং শাশুড়ি রুনিয়া বেগম।মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, আবদুল কুদ্দুসের স্ত্রী সৈয়দা হাবিবুন্নাহার ওরফে নাহিন পরকীয়ায় আসক্ত ছিলেন। সারাক্ষণ ফোনে কথা বলতেন। এ নিয়ে দুই পরিবার বসে সমঝোতা করে দেয়। কিন্তু নাহিন এরপরও পরকীয়া চালিয়ে যায়। আবদুল কুদ্দুস তার শাশুড়িকে এ বিষয়ে জানালে ভিকটিমের পরিবারকে নারী নির্যাতনের মামলার ও চাকরি হারানোর ভয় দেখায়। মূলত এ কারণেই আবদুল কুদ্দুস আত্মহত্যায় প্ররোচিত হয়।এর আগে গত ২৩ জানুয়ারি ভোরে রাজধানীর মিরপুর-১৪ নম্বরের পুলিশ লাইন মাঠে আবদুল কুদ্দুস নিজের রাইফেল দিয়ে আত্মহত্যা করেন। ভোর সোয়া ৫টার দিকে তিনি অস্ত্রাগার থেকে অস্ত্র নিয়ে ডিউটির জন্য বের হন। পরে পুলিশ লাইন মাঠের এক পাশে দাঁড়িয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। তার গ্রামের বাড়ি সিলেটের হবিগঞ্জের রসুলপুরে। বাবার নাম শাহ মো. আবদুল ওয়াহাব।

 

মৃত্যুর আগে ওই পুলিশ সদস্য ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন। ওই স্ট্যাটাসে নিজের মৃত্যুর জন্য কাউকে দায়ী না করলেও তার স্ত্রী ও শাশুড়ির নামে বিভিন্ন কথা লেখেন।

Development by: webnewsdesign.com