ঢাবির মেধাবী ছাত্রী সুমাইয়ার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান এলাকাবাসীর

শনিবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১২:৩৭ অপরাহ্ণ

ঢাবির মেধাবী ছাত্রী সুমাইয়ার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান এলাকাবাসীর
apps

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের মেধাবী ছাত্রী সুমাইয়া খাতুনের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করায় তা প্রত্যাখ্যান করে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় শহরের বলারীপাড়া মহল্লায় সুমাইয়ার প্রতিবেশীরা আধাঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন করেন। এ সময় সুমাইয়ার মা ও ভাই উপস্থিত ছিলেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, হত্যাকারীদের বাঁচাতে সুমাইয়ার হত্যার ঘটনা চিকিৎসকরা আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করেছে। হত্যার সাথে জড়িতদের পাশাপাশি চিকিৎসকদের বিচার দাবি করেন।

মানববন্ধনে সুমাইয়ার মা নুজহাত সুলতানা ও ভাই সালাহউদ্দিন অভিযোগ করেন, ময়নাতদন্তের রিপোর্টের বিষয়ে পুলিশ তাদের অবহিত করেনি। অভিযুক্তরা প্রভাবশালী হওয়ায় তারা ন্যায্য বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে বলে জানান তারা।

গত ২২ জুন সুমাইয়ার মরদেহ নাটোর সদর হাসপাতালে ফেলে পালিয়ে যায় সুমাইয়ার শ্বশুড় বাড়ির লোকজন। এই ঘটনায় ওই দিন রাতেই সুমাইয়ার মা নুজহাত সুলতানা বাদী হয়ে সদর উপজেলার বড় হরিশপুর এলাকার সুমাইয়ার স্বামী মোস্তাক হোসেন, তার শ্বশুর জাকির হোসেন, তার শাশুড়ি সৈয়দা মালেক ও ননদ জাকিয়া ইয়াসমিনকে অভিযুক্ত করে সদর থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলার ৪ অভিযুক্তকে পুলিশ আটক করে কারাগারে প্রেরণ করে।

গত ৯ আগস্ট পুলিশ সুমাইয়ার ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন নাটোরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ বিচারক আবদুর রহমান সরদারে আদালতে পেশ করে। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে ‌আত্মহত্যা উল্লেখ করায় সুমাইয়ার শ্বশুর জাকির হোসেন ও তার শাশুড়ি সৈয়দা মালেকা ওই দিন আদালত থেকে জামিন পান। এছাড়া জুলাইতে জামিন পান ননদ জাকিয়া ইয়াসমিন। তবে বর্তমানে স্বামী মোস্তাক রয়েছেন কারাগারে।

Development by: webnewsdesign.com